ঢাকা, রোববার   ২১ জুলাই ২০২৪ ||  শ্রাবণ ৫ ১৪৩১

বিএনপি বাস্তবতা বোঝে না : সেতুমন্ত্রী

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ২১:০৯, ১০ মার্চ ২০২৪  

সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের

সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের

দেশের মানুষের মনের ভাব না বোঝার কারণে বিএনপি জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে ভুলের ফাঁদে আটকে যাচ্ছে বলে মনে করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।এ সময় দেশের কয়েকটি সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে ভোটগ্রহণ নিয়ে সন্তোষ প্রকাশ করে তিনি বলেন, জনগণ শান্তিপূর্ণ উৎসবমুখর পরিবেশে তাদের প্রতিনিধি নির্বাচন করেছে।

রোববার (১০ মার্চ) দুপুরে রাজধানীর ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, নির্বাচন কমিশন সূত্র জানিয়েছে, এসব নির্বাচনে গড়ে ৬০ শতাংশ ভোটার ভোট দিয়েছে। নির্বাচনে সরকার কোনো প্রকার হস্তেক্ষেপ করেনি। বিচ্ছিন্ন বিক্ষিপ্ত দু-একটা ঘটনা ঘটেছে। স্থানীয় সরকারের এসব পর্যায়ের জনগণ শান্তিপূর্ণ উৎসবমুখর পরিবেশে তাদের প্রতিনিধি নির্বাচন করেছে।

এ সময় নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করার জন্য নির্বাচন কমিশন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী এবং বিজয়ী প্রার্থীদের আন্তরিক অভিনন্দন জানান ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, অনেক জায়গায় বিএনপি নেতারাও নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন এবং কিছু জায়গায় তাদের নেতারা জয়লাভ করেছেন। নির্বাচনে আওয়ামী লীগের কোনো দলীয় প্রতীক ছিল না। সরকারদলীয় প্রার্থী বা মনোনীত প্রার্থী হিসেবে কারো প্রচারণার কোনো সুযোগও ছিল না।

এই নির্বাচনের পরও বিএনপির মুখে নির্বাচন নিয়ে সরকারের বিরুদ্ধে আর কোনো কথা বলার যৌক্তিকতা থাকে না মন্তব্য করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, তারা যত দোষ নন্দ ঘোষ এ ধরনের একটা মানসিকতায় ভুগছে এবং সেটাই তারা করে যাচ্ছে।

‘আমাদের দেশে আজকে রাজনীতির যে বাস্তবতা এই বাস্তবতা বিএনপির মতো একটা দল উপলব্ধি করতে পারছে না। এটাই আজকে প্রমাণ হচ্ছে যে রিয়েলিটির সাথে তারা কন্ট্রাক্ট হারিয়ে ফেলছে। এই যে এতগুলো নির্বাচন হয়ে গেল বাংলাদেশের রাজনীতিতে আজকে এটা প্রমাণ হয়েছে শেখ হাসিনার হাতে এদেশের গণতন্ত্র নিরাপদ। তার হাতে যতদিন আছে দেশ পথ হারাবে না। তিনি বাংলাদেশের রিয়েলিটি বোঝেন, মানুষের চোখের ভাষা মনের ভাষা বোঝেন, যেটা বিএনপি বুঝতে ব্যর্থ হয়েছে।’

ওবায়দুল কাদের বলেন, রিয়েলিটির সাথে যাদের কন্ট্রাক্ট নেই। কারণ তারা মানুষের চোখের ভাষা বোঝে না, মনের ভাষা বোঝে না এবং সে কারণে রাজনীতিতে তারা ক্রমেই জনবিচ্ছিন্ন হয়ে যাচ্ছে। ক্রমেই তারা ভুলের ফাঁদে আটকে যাচ্ছে।

বিএনপি নেতা মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এবং মার্কিন রাষ্ট্রদূত পিটার হাসের অবস্থান কাকতালীয় কি না-এমন প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, আমি হাসপাতালে ছিলাম। আমার সাথে ফখরুল সাহেব কিংবা মার্কিন রাষ্ট্রদূত কারো সাথেই দেখা হয়নি। দেখা সাক্ষাতের কোনো সুযোগও ছিল না।

বিএনপির সমমনা দলের কর্মসূচি এবং তাতে সহিংস কর্মকাণ্ডে বিএনপির সম্পৃক্ততা আছে কি না-এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, এসব কর্মকাণ্ডে বিএনপির যোগসূত্র নেই এটি মনে করার কোনো কারণ নেই। বিএনপিকে শুধু আমাদের দেশে না, কানাডার ফেডারেল আদালত এই দলকে সন্ত্রাসী দল হিসেবে বলছে। অন্তত তিনবার তারা সন্ত্রাসী দলে চিহ্নিত হয়েছে। কাজেই সন্ত্রাস যেখানে আছে বিএনপি সেখানে আছে।

সর্বশেষ
জনপ্রিয়