সরকারের দুর্নীতিবিরোধী অভিযানে আতঙ্ক বিএনপি শিবিরে

নিউজ ডেস্ক

নতুনের সাথে আমরা

প্রকাশিত : ১০:৪২ এএম, ১১ জুন ২০২৪ মঙ্গলবার

সরকারের দুর্নীতিবিরোধী অভিযানে আতঙ্ক বিএনপি শিবিরে

সরকারের দুর্নীতিবিরোধী অভিযানে আতঙ্ক বিএনপি শিবিরে

বর্তমান সরকার দুর্নীতির বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি ঘোষণা করেছে অনেক আগেই। সেই ধারাবাহিক প্রক্রিয়ায় কিছুদিন পরপরই বড় বড় দুর্নীতিবাজদের নাম সামনে আসছে।বেরিয়ে আসছে তাদের অপকর্মের ফিরিস্তি। দায়িত্বের নামে দুর্নীতিবাজরা যেভাবে শত শত কোটি টাকার মালিক বনে যাচ্ছেন তাতে বিস্মিত হচ্ছেন সবাই। এ কথা সত্য যে সরকারের আন্তরিকতার কারণেই এই দুর্নীতিবাজদের চিহ্নিত করা সম্ভব হচ্ছে। সম্ভব হচ্ছে বিচারের আওতায় আনা।কিন্তু দুর্নীতির বিরুদ্ধে এই লাগাতার অভিযানের কারণে হঠাৎ করেই আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে বিএনপি নেতাকর্মীদের মধ্যে। কারণ এই দেশে দুর্নীতির প্রতিষ্ঠা করেছে তারাই। বিশেষ করে বিএনপির শেষ শাসনামলে তারা দেশের প্রতিটি প্রতিষ্ঠানের রন্ধ্রে রন্ধ্রে দুর্নীতির বীজ রোপণ করেছিলো। আর তাদের সেই দুর্নীতিচক্রই এখনও এই দেশেকে কুঁড়ে কুঁড়ে খাচ্ছে।

ক্ষমতায় না থাকলেও দেশের শীর্ষ পদগুলোতে এখনও রয়েছে তাদের রেখে যাওয়া দোসররা। যারা তারেকের কথামত লুট করছে হাজার হাজার কোটি টাকা। আর সেই টাকা পাচার করছে সিঙ্গাপুর, লন্ডনসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে। মূলত দেশে লাগাতার দুর্নীতি চলছে বলেই বিএনপির পূর্ণ ফান্ডিং চলছে। দেশে যদি দুর্নীতি বন্ধ হয়ে যায় তাহলে তারেকের বিলাসী জীবনে ভাটা পড়বে। কারণ দেশ থেকে পাচার করা টাকাই তারেকের বিলাসী জীবনের প্রধান উৎস। আর সেকারণেই তাদের আমালে রেখে যাওয়া দুর্নীতিবাজদের সঙ্গে সবসময় যোগাযোগ রক্ষা করে চলেছে তারা।

জানা গেছে, বর্তমান সরকারের লাগাতার দুর্নীতিবিরোধী অভিযানের কারণে হঠাৎ করেই আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে বিএনপির শীর্ষ নেতাদের মধ্যে। কারণ যেভাবে বড় বড় দুর্নীতিবাজরা ধরা পড়ছে তাতে খুব তাড়াতাড়িই কোন দুর্নীতিবাজ তারেকের নাম বলে বসবে।

সেই সঙ্গে উঠে আসতে পারে দুর্নীতির টাকায় ভাগ নেয়া এবং টাকা পাচারে অংশ নেয়া আরও অনেক বিএনপি নেতার নামও। তাই এই সময়টাতে বেশ হিসেব করেই পা ফেলছেন বিএনপির নেতারা।