ঢাকা, শনিবার   ২৫ জুন ২০২২ ||  আষাঢ় ১১ ১৪২৯

নববধূকে যে কারণে লাল শাড়ি পরানো হয়

ফিচার ডেস্ক

প্রকাশিত: ১০:১৬, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২২  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

উপমহাদেশে বিয়ের পিঁড়িতে বসার সময় কনের জন্য লাল শাড়ি যেন অপরিহার্য। কনে থেকে শুরু করে কনে-বরের বাড়ির লোকজনেরাও এই রংটিকেই প্রথম পছন্দের তালিকায় রাখেন। যুগ যুগ ধরেই এই রংটিকেই বিয়ের শাড়ির ক্ষেত্রে বেশি প্রাধান্য দেওয়া হয়। তবে অন্য রঙের শাড়ি যে বিয়েতে একেবারেই ব্যবহার হয় না তা নয়, তবে সংখ্যায় খুবই কম। 

বিপ্লবের প্রতীক লাল, ভালোবাসা ও যৌবনের প্রতীক লাল। ক্রোধের প্রতীক লাল, আবার শক্তির প্রতীকও লাল। অন্যান্য রঙের চেয়ের এর তরঙ্গদৈর্ঘ্য বেশি হওয়াও লাল বেশি চোখে লাগে। নিম্নবিত্ত থেকে উচ্চবিত্ত সব কনেই বিয়েতে লাল রঙের শাড়ি বেছে নেন। 

আগে পরিবার থেকেই শাড়িসহ বিয়ের আনুষাঙ্গিক জিনিসপত্র কেনা হতো। এখন বেশিরভাগ ক্ষেত্রে দেখা যায় কনে নিজেই শাড়ির রং হিসেবে লাল বেছে নেন। পরিবার থেকেও এ রংটিকেই বেশি গুরুত্ব দেয়া হয়। মেহেদি, বিয়ে, বৌভাত- বিয়েতে এখন নানা অনুষ্ঠানের ছড়াছড়ি। তবে বিয়ের মূল অনুষ্ঠানে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে লাল শাড়িতেই নিজেকে সাজিয়ে তোলেন কনেরা।

বিয়েতে অন্য কারও চেয়ে কনের ওপরই আলোটা থাকে। সবাই আগ্রহ থাকে কনে দেখার। আর লাল রঙের শাড়ি কনে হয়ে উঠেন তুলনামূলকভাবে বেশি আকর্ষণীয়। সুতি, জামদানি, তাঁত, মসলিনের মধ্যে থেকে কনে কিংবা তার পরিবার পছন্দের লাল শাড়িটি বেছে নেন। তবে লাল বেনারসী শাড়ির কদর চিরন্তন। এটি এখনো পছন্দের শীর্ষ স্থান দখল করে আছে। এছাড়াও লাল রং মানেই কামনা-বাসনা ও ভালোবাসার প্রতীক, আর এই দিনটা ভালোবাসার মানুষকে আপন করে নেয়ার দিন তাই লালেই পরিপূর্ণতা লাভ করে একটা বিয়ে।  

সর্বশেষ
জনপ্রিয়