ঢাকা, রোববার   ২৬ মার্চ ২০২৩ ||  চৈত্র ১১ ১৪২৯

হরকাতুল জিহাদের নাশকতার পরিকল্পনা, নেপথ্যে তারেক

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৫:৫৮, ৩০ জানুয়ারি ২০২৩  

বিএনপির পলাতক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান

বিএনপির পলাতক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান

জঙ্গি সংগঠন হরকাতুল জিহাদ নতুন করে সংগঠিত হয়ে বাংলাদেশে একটি বড় হামলা করার পরিকল্পনা করছিলো বলে জানিয়েছে কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিট (সিটিটিসি)। আর এর নেপথ্যে থেকে পুরো পরিকল্পনা সাজিয়েছিলেন বিএনপির তারেক।

গত শনিবার (২৮ জানুয়ারি) হরকাতুল জিহাদ আল ইসলাম বাংলাদেশের প্রধান প্রশিক্ষকসহ ছয় সদস্যকে গ্রেপ্তারের পর এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানিয়েছেন সিটিটিসি প্রধান অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার মো. আসাদুজ্জামান।

গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা হলেন হরকাতুল জিহাদের প্রধান প্রশিক্ষক ফখরুল ইসলাম (৪৯), মো. সাইফুল ইসলাম (২৪), মো. নুরুজ্জামান (৪৫), মোঃ. আবদুল্লাহ আল মামুন (২২), মো. দ্বীন ইসলাম (২৫) ও মোহাম্মদ আবদুল্লাহ আল মামুন (৪৬)।

সিটিটিসি প্রধান জানান, ১৯৮৮ সালে আফগান যুদ্ধে অংশ নিতে যান ফখরুল ইসলাম। একই সাথে সেসময় তালেবান ও আল কায়দার সাথে প্রশিক্ষণ নেন তিনি। নিয়মিত ফায়ারিং স্কোয়াডে অংশ নেন। একে ৪৭ রকেট লঞ্চার চালাতে সক্ষম তিনি। আল-কায়েদার সাবেক প্রধান ওসামা বিন লাদেনের সাথে তার সাক্ষাৎ হয়েছিল।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা গেছে, ১৯৯৮ সালে ভারত হয়ে দেশে এসে হরকাতুল জিহাদ শুরু করেন ফখরুল ইসলাম। বাংলাদেশে বড় ধরনের হামলার পরিকল্পনা ছিলো সংগঠনটির। কর্মী সংগ্রহের উদ্দেশ্যে ফখরুল কক্সবাজারের রোহিঙ্গা ক্যাম্প একাধিকবার পরিদর্শন করেছেন।

অনুসন্ধানে জানা যায়, রাষ্ট্রক্ষমতা দখলের উদ্দেশ্যে দুটি নীলনকশা করেছিলেন বিএনপির পলাতক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। গত ১০ ডিসেম্বর ব্যর্থ আন্দোলনের মধ্য দিয়ে ভেস্তে গেছে তার প্রথম পরিকল্পনা। এরপরই জামায়াতকে সাথে নিয়ে ‘প্লান বি’ বাস্তবায়নে তোড়জোড় শুরু করেন বিএনপির এই শীর্ষ নেতা। এই জঙ্গিদের মাধ্যমে নাশকতা সৃষ্টি করে দেশকে অস্থিতিশীল করার পরিকল্পনা ছিলো তারেকের প্ল্যান-বি’তে। দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে প্রস্তুতি নিচ্ছিলো এই জঙ্গিরা।

আর সন্ত্রাসীদের অস্ত্রসহ আর্থিক সহায়তা করছে জামায়াতের শীর্ষ নেতৃত্ব। এর সাথে জড়িত ছিলেন জামায়াত আমীর শফিকুর রহমানের ছেলে রাফাত সাদিক সাইফুল্লাহ। সূত্র বলছে, জামায়াতের এই শীর্ষ নেতাদের সাথে লন্ডনে একাধিকবার বৈঠক করেছেন তারেক রহমান।

গ্রেপ্তার ব্যক্তিদের কাছ থেকে আটটি মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়েছে বলে জানিয়েছে সিটিটিসি। সেসব ফোনে টাইম বোমা বানানোর বাংলা বিবরণীসহ ভিডিও পাওয়া গেছে। মোবাইলে এনক্রিপ্টেড মেসেজিং অ্যাপস ব্যবহার করে প্রশিক্ষণ ম্যানুয়াল শেয়ার করা হতো।তবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতায় বড় ধরনের ভয়াবহ নাশকতা থেকে রেহাই পেল বাংলাদেশ।

সর্বশেষ
জনপ্রিয়