ঢাকা, শুক্রবার   ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২ ||  আশ্বিন ১৫ ১৪২৯

হেপাটাইটিস সি ভাইরাস আক্রান্তদের বিনামূল্যে ওষুধ বিতরণ

স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা ডেস্ক

প্রকাশিত: ০৯:৪৫, ১৭ আগস্ট ২০২২  

হেপাটাইটিস সি ভাইরাস আক্রান্তদের বিনামূল্যে ওষুধ বিতরণ

হেপাটাইটিস সি ভাইরাস আক্রান্তদের বিনামূল্যে ওষুধ বিতরণ

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদতবার্ষিকীতে স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে ইন্টারভেনশনাল হেপাটোলজি ডিভিশনের উদ্যোগে হেপাটাইটিস সি ভাইরাস আক্রান্ত রোগীদের বিনামূল্যে ওষুধ বিতরণ করা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. শারফুদ্দিন আহমেদ প্রধান অতিথি হিসেবে অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকে ১১ জন হেপাটাইটিস সি ভাইরাস আক্রান্ত রোগীর মধ্যে বিনামূল্যে ওষুধ বিতরণ করেন।

এ সময়ে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য শিক্ষা অধ্যাপক ডা. মোশারফ হোসেন, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. আতিকুর রহমান ও প্রোক্টর অধ্যাপক হাবিবুর রহমান। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ইন্টারভেনশনাল হেপাটোলজি ডিভিশনের প্রতিষ্ঠাতা ডিভিশন প্রধান অধ্যাপক ডা. মামুন আল মাহতাব (স্বপ্নীল)।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে অধ্যাপক ডা. শারফুদ্দিন আহমেদ প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন পদ্মা সেতু যেমন বাংলাদেশের যোগাযোগ খাতের নতুন সক্ষমতার দিগন্ত উন্মোচন করেছে তেমনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশেষায়িত হাসপাতালটি যা এ মাসেই প্রধানমন্ত্রী উদ্বোধন করতে যাচ্ছেন তা এদেশের স্বাস্থ্যখাতের চালচিত্রের আমূল পরিবর্তন সাধন করবে।

তিনি ইন্টারভেনশনাল হেপাটোলজি ডিভিশনের কার্যক্রমের প্রশংসা করেন। গত এক বছরে ইন্টারভেনশনাল হেপাটোলজি ডিভিশনের অর্জনগুলো বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্যান্য ডিভিশনের জন্য তিনি পথিকৃৎ হিসেবে মনে করেন।

সভাপতির বক্তব্যে অধ্যাপক ডা. মামুন আল মাহতাব (স্বপ্নীল) জানান, বঙ্গবন্ধুর জন্ম না হলে বাংলাদেশের জন্ম হতো না। আর বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশের জন্ম দিয়েছিলেন বলেই তার অনুপস্থিতিতে তারই সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত ধরে আজ বাংলাদেশ এগিয়ে চলেছে।

এই বৈশ্বিক অর্থনৈতিক বিপর্যয়ের মধ্যেও বাংলাদেশ সেই সক্ষমতা রাখে যে তার নাগরিককে হেপাটাইটিস সি ভাইরাসের মতো দামি ওষুধ বিতরণের করতে পারে। অধ্যাপক ডা. মামুন আল মাহতাব (স্বপ্নীল) বলেন, যেসব মানুষ বাংলাদেশকে আজ দেউলিয়া রাষ্ট্রে পরিণত করার স্বপ্নে বিভোর তাদের জন্য এটি একটি উচিৎ জবাব।

২০২১ সালের ৭ জুলাই বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেটের এক নির্দেশে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে ইন্টারভেনশনাল হেপাটোলজি ডিভিশনটি প্রতিষ্ঠিত হয়। এরপর থেকে ডিভিশনটি নানারকম আধুনিক চিকিৎসার প্রচলন এই বিশ্ববিদ্যালয়ে করে চলেছে। এখন পর্যন্ত ডিভিশনটিতে লিভার সিরোসিসের রোগীদের জন্য স্টেম সেল থেরাপি, লিভার ফেইলিউর রোগীদের জন্য প্লাজমা এক্সচেঞ্জ, লিভার ডায়ালাইসিস এবং লিভার ক্যান্সারের রোগীদের জন্য ট্রান্স আর্টারিয়াল কেমো এম্বোলাইজেশনের মতো অত্যাধুনিক চিকিৎসা পদ্ধতিগুলোর প্রচলন করা হয়েছে।

পাশাপাশি ডিভিশনের বিশেষজ্ঞরা দেশের বিভিন্ন স্থানে স্টেম সেল থেরাপি এবং ট্রান্স আর্টারিয়াল কেমো এম্বোলাইজেশন চালু করার জন্য সহযোগিতা করে আসছেন। বর্তমানে ডিভিশনটিতে ন্যাসভ্যাক নামক হেপাটাইটিস বি ভাইরাসের একটি নতুন ওষুধের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল চলমান যা এরই মধ্যে হেপাটাইটিস বি ভাইরাসের একটি অন্যতম কার্যকর ওষুধ হিসেবে প্রমাণিত হয়েছে।

এই ট্রায়ালটি শেষ হলে ওষুধটি যেসব হেপাটাইটিস বি ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী এরই পূর্বে অন্য ওষুধ গ্রহণ করেছেন তাদের ওপর কেমন কার্যকর সেটি জানা যাবে। বাংলাদেশের যে নিজস্ব কোভিড ভ্যাক্সিন বঙ্গভ্যাক্স তার ফেজ-১ ক্নিনিক্যাল ট্রায়ালের অনুমোদন আমাদের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় সম্প্রতি দিয়েছেন, এই ইন্টারভেনশনাল হেপাটোলজি ডিভিশনেই বঙ্গভ্যাক্সের ফেজ-১ ক্নিনিক্যাল ট্রায়ালটি শুরু হতে যাচ্ছে।

সর্বশেষ
জনপ্রিয়