ঢাকা, মঙ্গলবার   ১১ মে ২০২১ ||  বৈশাখ ২৭ ১৪২৮

ভাল্লুকের থেকে অল্পের জন্য প্রাণে বাঁচলেন বাইকার, ভিডিও ভাইরাল

সোশ্যাল মিডিয়া ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৪:৪৪, ২৫ এপ্রিল ২০২১  

ছবি : সংগৃহীত

ছবি : সংগৃহীত

সম্প্রতি প্রকাশিত একটি সমীক্ষা অনুযায়ী মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র জুড়ে প্রায় ৬০ হাজারের কাছাকাছি কালো ভাল্লুক রয়েছে। আর তাই প্রশাসন থেকে বারবার পাহাড়ি পথের বাইকারদের সতর্ক করা হয়। বলা হয় অন্ধকার হয়ে এলে পাহাড়ি পথে বাইক না চালাতে।

প্রায়ই পাহাড়ের উঁচু থেকে তেড়ে এসে বিভিন্ন আরোহী বা বাইকারদের আক্রমণ করে ভাল্লুক। সম্প্রতি এমনই এক ঘটনা ঘটেছে। আর এর ভিডিও ফেসবুক পেইজে ভিডিওটি শেয়ার করেছে  মন্টানা নাইফ কোম্পানি। আর এই গায়ে কাঁটা জাগানো ঘটনা ঘটেছে দিনের আলোয়।

ভিডিওতে প্রথমেই দেখা যায় মন্টানার পাহাড়ের শ্যামল শোভা। তার ঠিক পরেই জঙ্গলের বুক চিরে পাহাড়ি পথের বাঁকে অসম্ভব রকমের দ্রুত গতিতে ছুটতে দেখা যায় এক কালো ভাল্লুককে। সেটা অস্বাভাবিকও কিছু নয়, এরা প্রতি ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ৩৫ কিলোমিটার বেগে একটানা ছুটে যাওয়ার ক্ষমতা ধরে। তবে বাইকের মাইলেজ আরো বেশি, অন্য দিকে বাইকারও প্রাণ বাঁচাতে মরিয়া। ফলে ভাল্লুক ছুটে এসে একটা উঁচু ঢাল থেকে তার উপরে লাফিয়ে পড়ার চেষ্টা করলেও বাইকের গতি বাড়িয়ে ভাল্লুকের নাগালের বাইরে কোনোমতে চলে যেতে সক্ষম হয়েছেন ওই ব্যক্তি। মন্টানা নাইফ কোম্পানি ভিডিও আপলোড করে লিখেছে- মনে থাকে যেন এটা ডিজনিল্যান্ড নয়।

এর আগেও মার্চ মাসের মাঝামাঝি আদ্রিয়ান স্টোইকা নামের এক ব্যক্তি রোমানিয়ার বরফমোড়া পাহাড়ের ঢালে ভাল্লুকের খপ্পরে পড়েছিলেন। স্টোইকা জানিয়েছিলেন যে তিনি প্রথমে ভেবেছিলেন, বাচ্চা ভাল্লুকটি তাদের ভয় পেয়ে পালিয়ে যাবে। কিন্তু কার্যত তা হয়নি, বরং ভাল্লুকটি তাদের দলের দিকে আরো ধেয়ে আসতে থাকে।

শেষমেশ মরিয়া হয়ে স্টোইকা হাত নেড়ে নিজের দিকে ভাল্লুকটির দৃষ্টি আর্ষণের চেষ্টা করেন। এতে কাজ হয়। ভাল্লুকটি তার পিছনে ধাওয়া করতে থাকে। এবং একটুও না থেমে দ্রুতগতিতে স্কি করতে থাকেন স্টোইকা। সঙ্গে পিছনে তেড়ে আসা ভাল্লুকের গতিবিধি ভিডিও করতে থাকেন।

সর্বশেষ
জনপ্রিয়