ঢাকা, বুধবার   ০৭ ডিসেম্বর ২০২২ ||  অগ্রাহায়ণ ২৩ ১৪২৯

দেশবিরোধী ষড়যন্ত্রে মত্ত পিনাকী ভট্টাচার্য

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৫:১৪, ১২ জানুয়ারি ২০২২  

পিনাকী ভট্টাচার্য

পিনাকী ভট্টাচার্য

বিদেশে পালিয়ে আছেন পিনাকী ভট্টাচার্য। সেখানে বসেই তিনি বাংলাদেশবিরোধী ষড়যন্ত্র করছেন। কিন্তু কী এমন হয়েছে যে, তিনি বিদেশে বসেই দেশের বিরুদ্ধে উঠেপড়ে লেগেছেন?

ঔষধ শিল্প জগতে আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত এক জালিয়াতি করেছেন পিনাকী ও তার পপুলার ফার্মাসিটিক্যালস। ২০০৮ সালে পিনাকী ভট্টাচার্য পপুলারের মাধ্যমে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এবং ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের কিছু দূর্নীতিবাজ কর্মকর্তাদের সাথে সিন্ডিকেট করে কয়েক কোটি টাকা লুটপাট করে।

লজ্জার ব্যাপার এই যে, পিনাকী ভট্টাচার্য ময়দা দিয়ে কালাজ্বরের ক্যাপসুল বানিয়ে কোটিপতি হন। সেই পিনাকী এখন সোশ্যাল মিডিয়ায় এসে নৈতিকতার শিক্ষা দেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, অনলাইনে সাধু সেজে জনগণকে নৈতিকতার সবক দেওয়া এই পিনাকী ভট্টাচার্য একজন চিহ্নিত দুর্নীতিবাজ এবং বাংলাদেশের ওষুধ শিল্প জগতে আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত এক জালিয়াত।

সূত্র জানায়, দেশত্যাগের আগে পিনাকী পপুলারের চিফ অপারেটিং অফিসার হিসেবে কাজ করতেন পপুলার ফার্মাসিটিক্যালসে। ২০০৮ সালে ডা. পিনাকী ভট্টাচার্য পপুলারের মাধ্যমে জীবন রক্ষাকারী ওষুধ জালিয়াতি করে কয়েক কোটি টাকা লুটপাট করে। তার এই জালিয়াতির সাথে যুক্ত ছিল বিএনপি-জামায়াতের আমলে নিয়োগ পাওয়া স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এবং ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের কিছু দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তা। পিনাকীর এই অপকর্ম ব্রিটেনের টেলিগ্রাফ পত্রিকায়ও প্রকাশিত হয়েছিল।

এরই মধ্যে এই ঘটনা দেশবাসীসহ বিশ্ববাসীও জেনেছে। কিন্তু দুর্নীতির অভিযোগে দেশ থেকে পালিয়ে যাওয়া ব্যক্তির কাছ থেকে নৈতিক শিক্ষার ব্যাপারটা সুখকর নয়। কেননা এ ধরনের ব্যক্তির কাছ থেকে ভালো শিক্ষার চেয়ে কুশিক্ষাটাই বেশি পাবে সাধারণ মানুষ।

বিশিষ্টজনরা এধরনের অসাধু ব্যক্তিদের পরামর্শ ও বুদ্ধি নেয়া থেকে বিরত থাকতে বলেছেন। কেননা এতে সমাজে লাভের চেয়ে ক্ষতিই বেশি হবে। এধরনের অনৈতিক মানুষদের থেকে দূরে থাকাটাই বুদ্ধিমানের কাজ।

সর্বশেষ
জনপ্রিয়