ঢাকা, বুধবার   ১৭ আগস্ট ২০২২ ||  ভাদ্র ২ ১৪২৯

অত্যন্ত সুন্দরী হওয়ার কারণে বিএনপির দায়িত্ব পেলেন শামা ওবায়েদ!

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৪:৫৪, ১৬ ডিসেম্বর ২০২১  

শামা ওবায়েদ

শামা ওবায়েদ

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার অবরুদ্ধ থাকার সাড়ে তিন বছর হলেও তাকে জামিনে মুক্ত করার ব্যাপারে কোনো কার্যকরী ভূমিকা পালন করতে পারেনি বিএনপি। যদিও এ কারণে বিএনপির একাংশ এর জন্য তারেক রহমানকে দায়ী করলেও অন্যপক্ষ বলছেন, কর্ম দোষেই অবরুদ্ধ আছেন খালেদা জিয়া। প্রকৃতপক্ষে বিএনপির যে পক্ষ বলছে খালেদা জিয়া কর্ম দোষে অবরুদ্ধ আছেন, তারা মূলত তারেকপন্থী নেতা বলে জানা গেছে।

দলটির একটি সূত্র বলছে, বিএনপির তারেকপন্থী নেতারা এতোই স্ট্রং যে, খালেদাপন্থী নেতারা যুক্তি-তর্ক এবং অর্থে টিকতে পারছে না তাদের সামনে।

এ প্রসঙ্গে কথা হয়, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের সঙ্গে। গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, বিএনপি একটা গণতান্ত্রিক শক্তির দল হলেও এর মধ্যে একাধিক মত বিদ্যমান। এক পক্ষ মির্জা ফখরুলকে সমর্থন করলেও অন্যপক্ষ সমর্থন করে ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকারকে। আবার মির্জা ফখরুলকে যারা পছন্দ করেন, তারা রুহুল কবির রিজভীর নির্দেশ মানতে চান না। কারণ দলে খালেদা জিয়ার সন্তান হিসেবে তারেক রহমান এগিয়ে রয়েছেন। এছাড়া তিনি দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান। তবে বর্তমানে অনেকে মনে করেন, তারেকের রাজনীতির মারপ্যাঁচ হয়তো শামা ওবায়েদ নির্ধারণ করে থাকেন।

বিএনপি নেতা শামা ওবায়েদ সম্পর্কে বলতে গিয়ে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, শামা ওবায়েদ অত্যন্ত সুন্দরী। এছাড়া কয়েকদিন আগে লন্ডন থেকে ঘুরে আসার পর তার শরীরের প্রাইভেট পার্টসগুলোর সৌন্দর্য বৃদ্ধি পেয়েছে। তারেক রহমান শামা ওবায়েদকে বলে দিয়েছেন, এখন থেকে তাকেই দলের সব কিছু নির্ধারণ করতে। একারণে বিভিন্ন রাজনৈতিক সিদ্ধান্তে আমরা তার পরামর্শ নেই। এটা দোষের কিছু নয়, বিএনপি বাঁচাতে যে কেউই সিদ্ধান্ত দিলে, আমরা তা গ্রহণ করি। আর এই কারণেই তাকে সংরক্ষিত আসনে এমপি করা হয়েছে।

এ নিয়ে যুক্তরাজ্য বিএনপি সভাপতি এম এ মালিকের সঙ্গে কথা হলে তিনি বলেন, মূলত শামা ওবায়েদের সঙ্গে ব্যক্তিগত সুসম্পর্ক ভালো থাকায় তাকে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে।

এম এ মালিক আরো বলেন, শামা ওবায়েদের বাবা কেএম ওবায়দুর রহমান একজন চতুর রাজনীতিবিদ হিসেবে সর্বাধিক পরিচিত ছিলেন। পাকিস্তান সরকারের সঙ্গে কেএম ওবায়দুর রহমানের সুসম্পর্ক ছিল।

এদিকে রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা মনে করেন, অভ্যন্তরীণ গ্রুপিং-লবিংয়ের কারণে বিএনপি রাজনীতিতে ঘুরে দাঁড়াতে পারছে না। দলটির কেউ তারেক-রিজভীপন্থী, কেউ আবার জমির উদ্দিন-ফখরুলপন্থী। যার কারণে দীর্ঘ সময় পেয়েও গুছিয়ে উঠতে পারেনি বিএনপি। সেক্ষেত্রে বিএনপিকে একটি ব্যর্থ রাজনৈতিক দল হিসেবে মানতে তাদের আপত্তি নেই বলেও জানা গেছে।

সর্বশেষ
জনপ্রিয়